‘দর্শকই বলে দেবে কার পারিশ্রমিক কত’

27

বর্তমানে বলিউডের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়গুলোর একটি পারিশ্রমিকের ক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমতা। সম্প্রতি এই বিষয় নিয়ে কথা বললেন দুই যুগের বেশি সময় ধরে বলিউডের ক্রিজে ছক্কা হাঁকানো অভিনয়শিল্পী কাজল।

ফিল্মফেয়ারের প্রতিবেদন অনুসারে দীর্ঘদিন ধরে বলিউডের বড় পর্দার এই পরিচিত মুখ পারিশ্রমিকের ক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমতা নিয়ে বললেন ভিন্নকথা। তিনি বলিউডের ছবিতে নারী আর পুরুষ অভিনয়শিল্পীদের পারিশ্রমিকের সমতায় বিশ্বাস করেন না। নায়ক আর নায়িকার সমান পারিশ্রমিকেও বিশ্বাস করেন না তিনি। তাঁর মতে, পারিশ্রমিক ব্যবসার সঙ্গে সম্পর্কিত, নারী বা পুরুষের সঙ্গে নয়।

পারিশ্রমিকের ক্ষেত্রে নারী-পুরুষের সমতা নিয়ে কাজল বললেন ভিন্নকথা। ছবি: ইনস্টাগ্রামকাজলের মতে, ছবিটি ব্যবসাসফল হওয়ার জন্য যাঁর তারকাখ্যাতি বা অভিনয় গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর হিসেবে কাজ করে, পারিশ্রমিক হওয়া উচিত সেই অনুসারে। যেমন সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত ‘পদ্মাবত’ ছবিতে রণবীর সিং বা শহীদ কাপুরের চেয়ে বেশি পারিশ্রমিক নিয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন।

‘তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ ছবির প্রচারণা অনুষ্ঠানে এসে কাজল বলেন, ‘আমি পারিশ্রমিকের ক্ষেত্রে সমতা নিয়ে ভাবি না। আমি বিশ্বাস করি, এটি ব্যবসার সঙ্গে সম্পর্কিত। দর্শকেরা ঠিক করবে কার পারিশ্রমিক কত হওয়া উচিত।’

‘তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ ছবিতে অজয় দেবগন ও কাজল। ছবি: ইনস্টাগ্রামকাজল আরও বলেন, দিন বদলেছে। এখন নারীরা পর্দার ‘হিরো’ হচ্ছেন। নারীকেন্দ্রিক গল্প নিয়ে বানানো চলচ্চিত্র বক্স অফিসে অনায়াসে ২০০ কোটি কামিয়ে নিচ্ছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই নারী অভিনয়শিল্পীদের পারিশ্রমিক বাড়ছে। এটা একটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। চাহিদা থাকলে প্রযোজক ওই নারী অভিনয়শিল্পী যা পারিশ্রমিক চাইবেন, তা দিয়েই তাঁকে ছবিতে নেবেন, নিতে বাধ্য থাকবেন।

কাজল।  ছবি: ইনস্টাগ্রামবড় বাজেটের ছবি ‘তানহাজি’ মুক্তি পাবে ১০ জানুয়ারি। ‘তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ই অজয় দেবগনের শততম ছবি। এখানে তিনি হবেন মারাঠি তানহাজি মালুসারি। আর তাঁর স্ত্রী সাবিত্রী মালুসারির ভূমিকায় দেখা যাবে বাস্তবের স্ত্রী কাজলকে।