চলে গেলেন না ফেরার দেশে “তাপস পাল”

28

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল আর নেই। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে মুম্বাইয়ের বেসরকারি হাসপাতালে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা, এবিপি নিউজসহ অন্যান্য গণমাধ্যম এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

ফেব্রুয়ারি থেকে বান্দ্রার হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তাপস পাল। পরিবার সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ুর রোগে ভুগছিলেন তিনি। কথা বলা ও চলা-ফেরায় সমস্যা ছিল। ভর্তি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল। ৬ ফেব্রুয়ারি ভেন্টিলেশন থেকে বের করা হয়। সোমবার রাতে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তাপস পাল। মঙ্গলবার ভোর ৩টে ৩৫ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয়।

 

১৯৫৮-র ২৯ সেপ্টেম্বর হুগলির চন্দননগরে জন্ম তাপস পালের। হুগলি মহসিন কলেজ থেকে বায়ো-সায়েন্স নিয়ে স্নাতক উত্তীর্ণ করেন তাপস।  বিয়ে হয় নন্দিনী পালের সঙ্গে। ছোটপর্দার সঙ্গে তিনি জড়িত। তাঁদের একটি মেয়ে রয়েছে সোহিনী, যিনি টলিউডের অভিনেত্রী।