করোনা পরিস্থিতি সর্বোচ্চ ভয়াবহতার দিকে এগুচ্ছে- স্বাস্থমন্ত্রী

215
ছবি সংগৃহীত

বৃহস্পতিবার (২১ মে) সচিবালয়ে বাংলাদেশে প্রস্তুতকৃত করোনার আপৎকালীন ওষুধ ‘রেমডেসিভির’ গ্রহণকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ৭০ দিন পার করেছি। এখন এই ভাইরাস সংক্রমণের চূড়ান্ত পর্যায়ের দিকে যাচ্ছে। সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, দেশে প্রতিনিয়তই করোনা আক্রান্ত রোগী বাড়ছে। তারপরেও তুলনামূলকভাবে আমরা অন্য দেশের তুলনায় এখনও ভালো আছি। আমরা করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছি। সারাদেশে করোনা চিকিৎসার জন্য ডেডিকেটেড হাসপাতাল করা হয়েছে। আমরা বলেছিলাম যে মে মাসে প্রতিদিন অন্তত ১০ হাজার টেস্ট করবো, সেটি  দুইদিন আগেই করা সম্ভব হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিশ্বের কোথাও এখনও করোনা রোগীর শতভাগ সুস্থ করে তোলার মতো ভ্যাকসিন বা ওষুধ উৎপাদন হয়নি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশে রেমডেসিভির ওষুধটি কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। তাই জরুরিভিত্তিতে চিকিৎসার জন্য এই ওষুধের অনুমোদন দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। শুধুমাত্র ওষুধ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে করোনাভাইরাস রোগীদের এই ওষুধ দেয়া হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক  আরও বলেন, বিভিন্ন হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি যে, যেখানেই দেরি হয়েছে সেখানেই রোগী বাঁচানো কষ্ট হয়েছে। দেরিতে হাসপাতালে নেওয়াটা খুবই ক্ষতিকর। দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশনে বর্তমানে সাড়ে ৩ হাজারের মতো করোনা রোগী আছেন। এই রোগের সঠিক চিকিৎসা নেই। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক পরা, ঘন ঘন সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এবং প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না যাওয়া অনুসরণ করতে হবে।